ধানের উৎপাদন বাড়াতে দরকার জাতের পরিবর্তন-বরিশালে কৃষি সচিব

নাহিদ বিন রফিক (বরিশাল): ধানের উৎপাদন বাড়াতে দরকার জাতের পরিবর্তন। পুরোনোগুলো বাদ দিয়ে অধিক উৎপাদনশীল জাত ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই আশানুরূপ ফলন পাওয়া সম্ভব। খাদ্য ও কৃষি সংস্থা করোনা পরবর্তী পৃথিবীতে খাদ্যাভাবের আশঙ্কা করেছে। তবে বাংলাদেশে খাবারের কোনো অভাব হবে না ইনশা-আল্লাহ। ইতোমধ্যে আউশে বাম্পার ফলন হয়েছে। বন্যায় আমনের কিছুটা ক্ষতি হলেও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা ও বোরোতে হাইব্রিড বীজের ব্যবহার বাড়িয়ে তা পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে। ৩ অক্টোবর বরিশাল নগরীর ব্রি সম্মেলনকক্ষে বরিশাল অঞ্চলে চলমান রোপা আমন আবাদ পরিস্থিতি এবং আগামী বোরো ও রবি মওসুমে করণীয় শীর্ষক দিনব্যাপি এক কর্মশালায় প্রধান…

সদ্যজাত বাছুরের যত্ন ও পরিচর্যা

স্তন্যপায়ী প্রায় সকল প্রাণীর জন্মপ্রক্রিয়া একই হলেও কিছু প্রাণীর ক্ষেত্রে জন্ম পরবর্তী নিবিড় যত্ন দরকার হয়। আমাদের দেশে ঘাস আর খড়ের উপর নির্ভর করে পালন করা দেশি গরুতে বাছুরের জন্ম পরবর্তী জটিলতা হতোনা বললেই চলে কারণ একদিকে গর্ভাবস্তায় গরু যেমন পর্যাপ্ত পরিমান পুষ্টিকর ঘাস পেতো আবার অন্যদিকে গরুও ছিলো শক্ত জাতের। কিক্ত বর্তমান বাস্তবতায় বিদেশী ক্রস জাতের গাভী এবং বাছুরের জন্য জন্ম পরবর্তী নিবিড় পরিচর্যা জরুরি। যেকোনো প্রাণী ভূমিষ্ট হওয়ার পরে খুব অসহায় অবস্থায় থাকে এবং পরিচর্যার মাধ্যমে তাকে সুস্থ সবল করে তুলতে হয়। জন্ম পরবর্তী পরিচর্যার উপরেই একটা বাছুরের…

পোল্ট্রি খামারে জৈব নিরাপত্তা

শীতের আগেই হাঁস-মুরগি, কবুতর ও কোয়েলের খামারগুলোতে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে হয়। কারণ বার্ড ফ্লু, রানীক্ষেত ও গামবোরো রোগের ভাইরাস কম তাপমাত্রায় অর্থাৎ শীতের আগে, শীতের সময় ও শীতের পরপরই সক্রিয় হয়ে মুরগিতে আক্রমণ করে। এজন্য হাঁস-মুরগির খামারগুলোতে জৈব নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে, যাতে কোন ভাবেই জীবাণু খামারে ঢুকতে না পারে এবং মুরগিতে সংক্রমিত না হয়। খামারে ভাইরাস জীবাণু সংক্রমিত হলে মুরগির মৃত্যু নিশ্চিত। তাই প্রতিরোধকমূলক অর্থাৎ জৈব নিরাপত্তা ব্যবস্থাই পোল্ট্রি শিল্পকে রক্ষা করার একমাত্র উপায়। খামারে জৈব নিরাপত্তা ব্যবস্থা করার জন্য সরকার, খামারের মালিক, কর্মকর্তা, কর্মচারি, পোল্ট্রি সামগ্রী আমদানি,…